খবর

ওয়ান স্টপ সার্ভিসের কারণে বিদেশী বিনিয়োগ বাড়ছে : সালমান এফ রহমান

19 February, 2019
Source: The Daily Bonikbarta

প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান বলেছেন, বিদেশী বিনিয়োগ বাড়াতে দেশে ওয়ান স্টপ সার্ভিস চালু করা হয়েছে। এ সুবিধার কারণে বহু দেশ বাংলাদেশে বিনিয়োগে আগ্রহ দেখাচ্ছে। অনুকূল পরিবেশ সৃষ্টি হওয়ায় বর্তমানে দেশে বিদেশী বিনিয়োগ বাড়ছে। গতকাল নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয় মেঘনা ইন্ডাস্ট্রিয়াল ইকোনমিক জোনে একটি শিল্প-কারখানার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

সালমান এফ রহমান গতকাল মেঘনা ইকোনমিক জোনে টিআইসি ম্যানুফ্যাকচারিং বাংলাদেশ লিমিটেডের কারখানা উদ্বোধন করেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশে নিযুক্ত অস্ট্রেলিয়ার হাইকমিশনার জুলিয়া নিবলেট, মেঘনা গ্রুপের চেয়ারম্যান মোস্তফা কামাল, বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের (বেজা) সদস্য ও অতিরিক্ত সচিব হারুন অর রশিদ, ঢাকা মেট্রোপলিটান চেম্বার অব কমার্সের (এমসিসি) সভাপতি ব্যারিস্টার নিহাদ কবির ও বার্জার পেইন্টসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রূপালী চৌধুরিসহ অন্যরা।

প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগবিষয়ক উপদেষ্টা বলেন, সরকারের উদ্যোগ ও রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা বজায় থাকায় দেশে একের পর এক বিনিয়োগ হচ্ছে। সরকার বেজার মাধ্যমে মেঘনা গ্রুপকে ইকোনমিক জোন করার অনুমতি দিয়েছে বলেই আজ বিদেশী বিনিয়োগ হয়েছে। মেঘনা গ্রুপ মাত্র আড়াই বছরে এ ইকোনমিক জোন ডেভেলপ করেছে।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সারা দেশে একশর বেশি ইকোনমিক জোন করার উদ্যোগ নিয়েছেন। চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে প্রায় ৩০ হাজার একর জমির ওপর ইকোনমিক জোন করা হচ্ছে। মিরসরাইয়ে আরো অনেক বেশি বিদেশী বিনিয়োগ হবে। আজকে মেঘনা ইকোনমিক জোনে যে বিদেশী বিনিয়োগ হয়েছে, সেটা অন্য দেশের উদ্যোক্তাদের বাংলাদেশে বিনিয়োগে আগ্রহী করবে।

মেঘনা গ্রুপের চেয়ারম্যান মোস্তফা কামাল বলেন, অস্ট্রেলিয়ার পাশাপাশি জাপান, জার্মানি, সুইজারল্যান্ডসহ বেশ কয়েকটি দেশ মেঘনা ইকোনমিক জোনে বিনিয়োগের আগ্রহ প্রকাশ করেছে। এরই মধ্যে জাপানের একটি কোম্পানি বাংলাদেশ ব্যাংকের মাধ্যমে আমাদের অ্যাকাউন্টে ৫ মিলিয়ন ডলার জমা দিয়েছে। তাদের টেকনিশিয়ান ও আমাদের টেকনিশিয়ান যৌথভাবে কাজ করছে। জার্মানির একটি কোম্পানির বিনিয়োগের বিষয়টি চুক্তির পর্যায়ে আছে। বিদেশীরা যেভাবে বিনিয়োগের আগ্রহ দেখাচ্ছেন, তাতে করে বাংলাদেশ অনেক দূর এগিয়ে যাবে।

অস্ট্রেলিয়ার টিআইসি গ্রুপ ও প্যাক্ট গ্রুপের অঙ্গপ্রতিষ্ঠান টিআইসি ম্যানুফ্যাকচারিং লিমিটেড। নতুন কারখানায় প্রতিষ্ঠানটি তৈরি পোশাক শিল্পের অনুষঙ্গ (অ্যাকসেসরিজ) হ্যাংগার তৈরি করবে বলে জানান উদ্যোক্তারা।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে টিআইসি গ্রুপের পরিচালক মার্ক গ্যানডার বলেন, টিআইসি বিশ্বের ১৫ দেশে কাজ করছে। নতুন ইউনিটটি বিশ্ববিখ্যাত গার্মেন্টস রিটেইলারদের কাছে প্লাস্টিকের হ্যাংগার সরবরাহ করবে। টিআইসি ধীরে ধীরে এ ইউনিট সম্প্রসারণ করবে। এ কারখানায় পাঁচ হাজারের বেশি জনবল কাজ করতে পারবে।