খবর

দোহার-নবাবগঞ্জকে নিরাপদ রাখতে লকডাউনের পরামর্শ সালমান এফ রহমানের

9 April, 2020
Source: The Daily Manabzamin

করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধে ও মানুষকে নিরাপদ রাখতে নিজ এলাকাকে লকডাউনের পরামর্শ দিয়েছেন ঢাকা-১ (দোহার-নবাবগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য প্রধানমন্ত্রীর শিল্প ও বিনিয়োগ বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান। বৃহস্পতিবার থেকে দোহার ও নবাবগঞ্জ উপজেলাকে আংশিক লকডাউন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন। নবাবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এইচ এম সালাহউদ্দিন মনজু বলেন, পার্শ্ববর্তী কেরানীগঞ্জ উপজেলায় কয়েকজন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। রাজধানী ঢাকাতেও করোনা রোগীর পরিমাণ বাড়ছে। সেকারণে বাহিরের কেউ যাতে কাল থেকে নবাবগঞ্জে অবাধে প্রবেশ করতে না পারে সেজন্য কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ চেকপোস্ট বসানো হবে। একই সাথে পণ্যবাহী যান ছাড়া সকল ধরনের যানবাহন চলাচল থাকবে সীমিত। সালমান এফ রহমান এমপি মহোদয়ের নির্দেশে প্রশাসনের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলোচনা করে জনস্বার্থে দ্রুত এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। দোহার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আফরোজা আক্তার রিবা বলেন, যেহেতু ঢাকা শহর ও কেরানীগঞ্জে করোনা রোগী বাড়ছে সেহেতু দোহার ও নবাবগঞ্জের মানুষকে নিরাপদ রাখতে বিষয়টি নিয়ে সংসদ সদস্য সালমান এফ রহমান স্যার ঢাকা জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের সাথে কথা বলেছেন।

পরিস্থিতি বিবেচনায় জনস্বার্থে আংশিক লকডাউনের সিদ্ধান্ত হয়েছে। বিভিন্ন স্থানে চেকপোস্টের মাধ্যমে যান ও মানুষ চলাচল সীমিত করা হবে। দোহার থানার অফিসার (ওসি) সাজ্জাদ হোসেন বুধবার বিকালে জানান, ঢাকা-১ আসনের সংসদ সদস্য সালমান এফ রহমান বুধবার ঢাকা জেলা প্রশাসক আবু সালেহ মোহাম্মদ ফেরদৌস খান ও ঢাকা জেলা পুলিশ সুপার মারুফ হোসেন সরদার আলাপ করে দোহার ও নবাবগঞ্জ উপজেলার মানুষের স্বার্থে সমন্বিতভাবে এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। রাজধানী ঢাকা ও পার্শ্ববর্তী কেরানীগঞ্জ উপজেলায় করোনা রোগী শনাক্ত হওয়ায় এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে জানান তিনি। একইসাথে দোহার ও নবাবগঞ্জের মধ্যে সড়ক যোগাযোগও অনেকটা বিচ্ছিন্ন থাকবে। সাজ্জাদ হোসেন বলেন, ঢাকা জেলা পুলিশ সুপারের নির্দেশক্রমে কাল বৃহস্পতিবার থেকে আংশিক লকডাউনের সিদ্ধান্ত কার্যকর করবে পুলিশ। তিনি জানান, দোহারের নয়টি ছোট ছোট সড়ক দিয়ে যান চলাচল একেবারে বন্ধ থাকবে। শুধুমাত্র ঢাকা-দোহার সড়কের ফুলতলা, পালামগঞ্জ ও নিকড়া সড়ক দিয়ে পণ্যবাহী যান চলাচল অব্যাহত থাকবে। এসব স্থানে চেকপোস্ট বসানো হবে এবং থার্মাল স্ক্যানার দিয়ে চেক করে প্রবেশের অনুমতি দেয়া হবে। প্রতিটি সড়কে জরুরি প্রয়োজন ছাড়া মানুষের চলাচল সীমিত করা হবে। দোহার উপজেলার মানুষের স্বার্থেই এমন সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে বলে জানান ওসি সাজ্জাদ হোসেন।
নবাবগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মো. মোস্তফা কামাল জানান, উপজেলার ১৪টি ইউনিয়নের ওয়ার্ড পর্যায় পুলিশের টহল রয়েছে । তারপরও মানুষের মাঝে ভয় কম কাজ করছে । কথা যারা না শুনবে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। প্রয়োজনে আরো কঠোর করা হবে। এমপি মহোদয়ের নির্দেশ মোতাবেক আজ থেকে আরো কঠোর হবে পুলিশ। বিনা কারণে কাউকে ঘোরাঘুরি করতে দেয়া হবে না। এম্বুলেন্স, মালবাহী নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যবাহী যান ছাড়া কোন প্রকার যানবাহন চলাচল করতে পারবে না। নবাবগঞ্জের বাইরে থেকে কেউ প্রবেশ কিংবা বাহির হতে পারবেন না। এমপি মহোদয়ের নির্দেশে জনগণের নিরাপত্তা ও ঝুঁকির এড়ানোর স্বার্থে যে কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে ।