খবর

ওষুধ রফতানি আয় শিগগিরই বিলিয়ন ডলার ছাড়াবে

29 February, 2020
Source: The Daily Inqilab

প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান বলেছেন, দেশের ওষুধ রফতানি আয় শিগগিরই বিলিয়ন ডলার ছাড়াবে। সালমান এফ রহমান বলেন, স্থানীয় ৯৮ শতাংশ চাহিদা পূরণ করে বিদেশে ওষুধ রফতানি করছে বাংলাদেশ। গুণগত মানের কারণে বিশ্ব বাজারে বাংলাদেশি ওষুধের চাহিদা বাড়ছে। চলতি বছরের মধ্যে আমরা ওষুধ রফতানিতে আয় বিলিয়ন ডলার ছাড়িয়ে যাবো। গতকাল শুক্রবার রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি, বসুন্ধরায় (আইসিসিবি) ১২তম এশিয়া ফার্মা এক্সপোর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা জানান।

প্রধানমন্ত্রীর এই উপদেষ্টা বলেন, ওষুধ শিল্পে নতুন প্রযুক্তির ব্যবহার খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এক্সপোতে অনেক প্রতিষ্ঠান নতুন প্রযুক্তি নিয়ে আসে, এতে অভ্যন্তরীণ প্রতিষ্ঠান নতুন প্রযুক্তির সঙ্গে পরিচিত হওয়ার সুযোগ পায়। ২০০৩ সালে প্রথম ফার্মা এক্সপো শুরু হয়। এ ধরনের এক্সপো নিয়মিত হলে দেশের ওষুধ শিল্প অনেক এগিয়ে যাবে।
সভাপতির বক্তব্যে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব ফার্মাসিউটিক্যালস ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বলেন, বাংলাদেশ ওষুধ শিল্প দিনদিন উন্নতি করছে। বর্তমানে ১৪০টি দেশে ওষুধ রফতানি করছি। সরকার ঘোষণা করেছে, এ শিল্প অগ্রাধিকার শিল্প। এ ধরনের এক্সপো আয়োজন করতে পেরে আমরা আনন্দিত। তিনি বলেন, এ এক্সপোতে ১৮টি দেশের ৫০০ কোম্পানি অংশগ্রহণ করেছে। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত করোনাভাইরাসের কারণে চায়না থেকে অনেক কোম্পানি অংশগ্রহণ করতে পারেনি।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ওষুধ প্রশাসন অধিদফতরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মো. মাহবুবুর রহমান বলেন, আমাদের ওষুধ বিশ্বমানের। গুণগত মান নিশ্চিত করেই ওষুধ উৎপাদন করা হয়। ফলে উন্নত বিশ্বের অস্ট্রেলিয়া ও ইউরোপের বিভিন্ন দেশে ওষুধ রফতানি হচ্ছে।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে ঢাকায় নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার রীভা গাঙ্গুলি দাস উপস্থিত থাকার কথা থাকলেও কক্সবাজারে অবস্থান করায় উপস্থিত হতে পারেননি। তার পক্ষে ভারতীয় হাইকমিশনের প্রতিনিধি বক্তব্য রাখেন। তিন দিনব্যাপী এ আন্তর্জাতিক প্রদর্শনী শেষ হবে আগামী রোববার। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত চলবে এ এক্সপো। বাংলাদেশ ওষুধ শিল্প সমিতি, সিইপি এক্সপো প্রাইভেট লিমিটেড, অ্যালিয়েন্ট লিমিটেড ইপস ইন্ডিয়া যৌথভাবে এ এক্সপোর আয়োজন করেছে।