খবর

সাইবার নিরাপত্তায় যৌথভাবে কাজ করবে সিটিও ফোরাম ও আইসিটি ডিভিশন

20 January, 2020
Source: The Daily Ittefaq

চতুর্থ শিল্পবিপ্লব ও সাইবার ঝুঁকি মোকাবিলায় সিটিও ফোরাম বাংলাদেশের সঙ্গে যৌথভাবে কাজ করার ঘোষণা দিলেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষ্যে ‘চতুর্থ শিল্পবিপ্লব ও সাইবার নিরাপত্তার ঝুঁকি মোকাবিলায় তথ্যপ্রযুক্তিবিদদের প্রস্তুতি’ স্লোগান নিয়ে ১৮ জানুয়ারি শনিবার ঢাকায় অনুষ্ঠিত হলো প্রধান প্রযুক্তি কর্মকর্তাদের (সিটিও) সম্মেলন সিটিও টেক সামিট ২০২০।

সারা দিনব্যাপী এই আয়োজনের সমাপ্তি অনুষ্ঠানে তপন কান্তি সরকারের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে যোগদান করেন প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি খাত ও বাণিজ্য বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান এমপি, তার সঙ্গে বিশেষ অতিথি ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এমপি, এলজিইডি প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য এমপি, তাদের সঙ্গে আরো ছিলেন বাংলাদেশ হাইটেক পার্কের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হোসনে আরা বেগম এনডিসি।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ সম্মেলনে বলেন, তথ্যপ্রযুক্তিতে দেশ দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে। চতুর্থ শিল্পবিপ্লব মোকাবিলায় সরকার প্রস্তুত। দক্ষ মানবসম্পদ তৈরির কাজ চলছে। এই সময় তিনি বাংলাদেশ সরকারের আইসিটি বিভাগের সঙ্গে সিটিও ফোরাম বাংলাদেশের যৌথভাবে কাজ করার প্রবল আগ্রহ প্রকাশ করেন।

প্রধানমন্ত্রীর সম্মানিত উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান বলেন ‘সিটিওদের ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার দায়িত্ব নিতে হবে, সরকারি ও বেসরকারি খাতকে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে এগোতে হবে।’

সিটিও ফোরামের সভাপতি তপন কান্তি সরকার বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষ্যে আয়োজন করা হচ্ছে এবারের সম্মেলন। আমাদের লক্ষ্য হচ্ছে—ব্লক চেইন বা আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্সের মতো নতুন প্রযুক্তির বিষয়গুলো সামনে তুলে আনা। পৃথিবীর ৮০% মানুষ এখন প্রতি মুহূর্তে ইন্টারনেট ব্যবহার করছেন। সাইবার ঝুঁকি মোকাবিলায় আমরা অনেকটা পথ এগিয়েছি। এখানে আরো উন্নতি করার সুযোগ আছে। এই নতুন বছর একটি নতুন দশকেরও সূচনা। অনেকাংশেই বলা যায়, ৪র্থ শিল্প বিপ্লবের প্রকাশিত রূপ দেখতে পাব এই নতুন বছরে। তাই এই বছরের চ্যালেঞ্জগুলোও অনেক। পৃথিবী দ্রুতই ক্যাশলেসের দিকে আগাচ্ছে। আসছে রোবটিক্স অটোমেশন, অগমেন্টেড রিয়েলিটি, ভার্চুয়াল রিয়েলিটির দিকে। নতুন শুরু হওয়া বছরের চ্যালেঞ্জ এগুলো নিয়েই। আধুনিক প্রযুক্তি খাতের নানা বিষয় নিয়ে বিশেষজ্ঞদের মতামত তুলে ধরতে অনন্য একটি আয়োজন করা হয়েছে।’

তপন কান্তি আরো বলেন, সিটিও ফোরাম বাংলাদেশ তথ্যপ্রযুক্তি খাতে কর্মরত প্রযুক্তিবিদদের জন্য এদেশে একমাত্র সংগঠন। আমাদের সংগঠনের লক্ষ্যই হচ্ছে দেশের প্রযুক্তিবিদদের একত্রিত করে নলেজ শেয়ারিংয়ের মাধ্যমে দেশের ইনফরমেশন টেকনোলজি ইনফ্রাস্ট্রাকচার ও নীতিনির্ধারণে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখা। একই সঙ্গে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে বিদেশি বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে দেশের প্রযুক্তিবিদ ও কর্মকর্তাদের সঙ্গে কোলাবরেশন তৈরি করা। আধুনিক প্রযুক্তির নানা বিষয় যেমন-ডিজিটাল রূপান্তর, চতুর্থ শিল্পবিপ্লব, ডিজিটাল বাংলাদেশ, সাইবার চ্যালেঞ্জগুলো নিয়ে কাজ করার পাশাপাশি সিটিও ফোরাম সাইবার নিরাপত্তার পাশাপাশি আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহারের উত্সাহ ও সচেতনতা তৈরিতে কাজ করছে। এর অংশ হিসেবে প্রতিনিয়ত সচেতনতামূলক নানা কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়া হবে।

এবারের সম্মেলনে প্রায় সব সেমিনার ও প্যানেল আলোচনায় দেশের বিশেষজ্ঞ ও প্রযুক্তির নেতৃস্থানীয় ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন। সম্মেলনে দেশের প্রযুক্তি খাতের সরকারি পর্যায়ের নীতিনির্ধারণী ব্যক্তিরাও সরাসরি অংশগ্রহণ করেন। সাইবার নিরাপত্তা ও ডিজিটাল উদ্ভাবন—এ দুই ভাগে সাজানো হয় সম্মেলন। সম্মেলনে ১০টি সেমিনার ও প্যানেল আলোচনায় অংশগ্রহণকারী ব্যক্তিরা সর্বাধুনিক প্রযুক্তি ও সেবা সম্পর্কে জানতে পেরেছেন। সম্মেলনে আধুনিক প্রযুক্তির নানা বিষয় তুলে ধরেন বিশেষজ্ঞরা। যুক্তরাষ্ট্র, মালয়েশিয়া, নেপাল, ভারতসহ কয়েকটি দেশ থেকে বিশেষজ্ঞরা এবারের সম্মেলনে যোগ দেন।

দেশের তথ্যপ্রযুক্তিবিদদের একমাত্র সংগঠন সিটিও ফোরামের আয়োজনে ঢাকা ক্লাবের স্যামসন চৌধুরী কনভেনশন সেন্টারে আয়োজিত এ সম্মেলনে দেশ ও বিদেশের প্রায় ৫০ জন বিশেষজ্ঞ এবং প্রায় ৪৫০ জন তথ্যপ্রযুক্তি কর্মকর্তা যোগ দেন। সম্মেলনে চতুর্থ শিল্পবিপ্লব, এআই ও সাইবার নিরাপত্তার মতো আধুনিক প্রযুক্তির নানা বিষয় আলোচনা হয়। এতে দেশের সিটিওদের মধ্যে তথ্যপ্রযুক্তির জ্ঞান বিনিময় ও অভিজ্ঞতা লাভের সুযোগ হয়েছে।

আয়োজনটির উদ্বোধনী আয়োজনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর অর্থ বিষয়ক উপদেষ্টা ড. মশিউর রহমান তার সঙ্গে বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাই কমিশনার শ্রীমতী রীভা দাশ গাঙ্গুলি, আইসিটি বিভাগের সম্মানিত জ্যেষ্ঠ সচিব এন এম জিয়াউল আলম, বাংলাদেশ স্যাটেলাইট কোম্পানির চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ এবং স্বনামধন্য আন্তর্জাতিক প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান সিসকো এর ম্যানেজিং ডিরেক্টর শুধির নায়ার।