খবর

পাঁচ কারণে বাফুফেকে ধন্যবাদ সালমান এফ রহমানের

13 March, 2019
Source: jagonews24.com

মেয়েদের আন্তর্জাতিক ফুটবল টুর্নামেন্ট আয়োজন করায় পাঁচ কারণে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনকে (বাফুফে) ধন্যবাদ জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগবিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান।

মঙ্গলবার প্যান প্যাসিফিক হোটেল সোনারগাঁওয়ের বলরুমে টুর্নামেন্টের লোগো উন্মেচন ও ড্র অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সালমান এফ রহমান কারণগুলো উল্লেখ করেছেন। সালমান এফ রহমান বলেছেন, ‘মেয়েদের নিয়ে এই টুর্নামেন্ট আয়োজনের উদ্যোগ নেয়ায় আমি কয়েকটি কারণে বাফুফেকে ধন্যবাদ দেব।

১. দেশে নারীর ক্ষমতায়নে অসামান্য অবদান রাখছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এই তো তিনি নারী দিবস উপলক্ষে জার্মানিতে ‘লাইফ টাইম কন্ট্রিবিউশন ফর উইমেন এম্পাওয়ারমেন্ট অ্যাওয়ার্ড’-এ ভূষিত হয়েছেন। এটা বাংলাদেশের জন্য বড় এক গৌরব।

২. বাংলাদেশে এখন বিভিন্ন সেক্টরে নারীরা এগিয়ে আসছেন। আমার এলাকাতেই উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সাব-রেজিস্ট্রারসহ কয়েকটি সরকারি প্রতিষ্ঠানে শীর্ষ পদে নারীরা আছেন।

৩. নারীরা যখন বিভিন্ন ক্ষেত্রে এগিয়ে যাচ্ছেন তখন নারী ফুটবলারদের নিয়ে আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্ট।

৪. টুর্নামেন্টের নামকরণ বঙ্গমাতার নামে করা হয়েছে। আমরা সবাই জানি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এ দেশের প্রতিষ্ঠাতা। আর বঙ্গবন্ধুকে নানাভাবে সাহস ও অনুপ্রেরণা জুগিয়েছিলেন তার সহধর্মীণি বেগম ফজিলাতুননিসা মুজিব।

৫. এমন এক সময় এই টুর্নামেন্ট আয়োজন করছে বাফুফে যখন আমাদের দেশের মেয়েরা ফুটবলে অনেক ভালো করছে। আমি মনে করি, বাফুফে সঠিক সময়ই এই টুর্নামেন্ট আয়োজন করতে যাচ্ছে।’

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বাফুফে সভাপতি কাজী মো. সালাউদ্দিন, সিনিয়র সহ-সভাপতি আব্দুস সালাম মুর্শেদী, টুর্নামেন্টের স্বত্বাধিকারী প্রতিষ্ঠান কে-স্পোর্টসের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ফাহাদ এম এ করিম, হামিম গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এ কে আজাদ, মিনিস্টার হাইটেক পার্ক লিমিটেডের চেয়ারম্যান এম এ রাজ্জাক খান রাজ, বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের মহাসচিব সৈয়দ শাহেদ রেজা, ফর্টিস গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শাহাদাত হোসেন, বাফুফে নির্বাহী সদস্য, মহিলা ফুটবল কমিটির চেয়ারম্যান, ফিফা কাউন্সিল মেম্বার ও এএফসি সদস্য মাহফুজা আক্তার কিরণ এবং টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণকারী সংযুক্ত আরব আমিরাত দূতাবাসের কর্মকর্তা আলী খালিফ আল ইয়াম্মাহি।